সিলেট ৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

লিডিং ইউনিভার্সিটিতে নবীন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ

ক্যাম্পাস ডেস্ক
প্রকাশিত জানুয়ারি ২২, ২০২৩, ০৮:০৮ অপরাহ্ণ
লিডিং ইউনিভার্সিটিতে নবীন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ

লিডিং ইউনিভার্সিটির নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রোগ্রামে শ্প্রিং ২০২৩ সেমিস্টারে ভর্তিকৃত নবীন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।

নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লিডিং ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান দানবীর ড. সৈয়দ রাগীব আলী। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ও ট্রেজারার শ্রীযুক্ত বনমালী ভৌমিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য সৈয়দ আব্দুল হাই।

নবীন শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. সৈয়দ রাগীব আলী বলেন, সুন্দর শিক্ষার পরিবেশ ও দক্ষ শিক্ষকবৃন্দ দ্বারা পরিচালিত লিডিং ইউনিভার্সিটি সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। সিলেটে শহরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত হলেও লিডিং ইউনিভার্সিটির গ্র্যাজুয়েটগন দেশে এবং বিদেশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি পাচ্ছে এবং তারাই এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ছড়িয়ে দিচ্ছে। আজ এ অঞ্চল শিক্ষা নগরী হিসেবে পরিচিত হচ্ছে। তিনি শিক্ষার্থীদের পাঠ্যপুস্তক ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি বলেন, কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতেও এ বিশ্ববিদ্যালয় অত্যন্ত দক্ষতার সাথে শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনা করেছে। আজকের এ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকগণ উপস্থিত থাকার জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানান এবং ভবিষ্যতে তাদের সুচিন্তিত পরামর্শ কামনা করেন। পরিশেষে লিডিং ইউনিভার্সিটির শিক্ষা পরিবেশ উন্নয়নে সর্বাত্বক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে তিনি সবার উত্তরোত্তর উন্নতি কামনা করেন।

বিশেষ ছুটিতে দেশের বাইরে অবস্থান করায় এক বার্তায় নবীন শিক্ষার্থীদের লিডিং ইউনিভার্সিটিতে স্বাগত জানান এবং তাদের উন্নত ও কার্যকর শিক্ষাজীবন কামনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. কাজী আজিজুল মাওলা।

উচ্চশিক্ষা গ্রহনের সূচনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো এবং শিক্ষা পরিবেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে যা লিডিং ইউনিভার্সিটিতে রয়েছে উল্লেখ করে সভাপতির বক্তব্যে শ্রীযুক্ত বনমালী ভৌমিক নবীনদের উদ্দেশ্যে বলেন, এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং কর্মকর্তাবৃন্দ খুবই আন্তরিক। যেকোনো প্রয়োজনে শিক্ষার্থীরা নির্দিষ্ট দপ্তরে যোগাযোগ করলে তাৎক্ষণিক সহায়তা পাবে। বঙ্গশ্রেষ্ঠ দানবীর ড. সৈয়দ রাগীব আলী আজকে এ অনুষ্ঠানে এসে নবীন শিক্ষার্থীদের উৎসাহ প্রদান করার জন্য ধন্যবাদ জানান এবং তাঁর সুস্বাস্থ্য কামনা করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সৈয়দ আব্দুল হাই বলেন, শিক্ষা জীবনের আজকের এ অনুষ্ঠান খুবই স্মরণীয় হয়ে থাকবে এবং এখন থেকেই পরিবার এবং সমাজের জন্য শিক্ষার্থীদের নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠা করার সংগ্রামে মনোনিবেশ করতে হবে।

জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে নবীনদের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. মফিজুল ইসলাম। লিডিং ইউনিভার্সিটিতে কি করা যাবে এবং কি করা যাবেনা সেসব বিষয়ে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর রানা এম. লুৎফুর রহমান পীর। তিনি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ক্লাব এবং এসোসিয়েশনে সম্পৃক্ত হবার জন্য নবীনদের আহবান জানান। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা এবং অন্যান্য বিষয়ে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মোস্তাক আহমাদ দীন।

ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মো. জাহাঙ্গীর আলম এবং ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক সেতু দাশের সঞ্চালনায় এতে আরও বক্তব্য রাখেন ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. বশির আহমেদ ভুঁইয়া, আধুনিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর সৈয়দা জেরিনা হোসেন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. মাইমুল আহসান খান এবং কলা ও আধুনিক ভাষা অনুষদের ডিন ড. মো. রেজাউল করিম।

সাংস্কৃতিক পর্বে দানবীর রাগীব আলীকে নিয়ে স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজের গবেষণা সহকারি মো. জসিম উদ্দিন এবং লিডিংইউনিভার্সিটিকে নিয়ে কবিতা আবৃত্তি করেন আইন বিভাগের প্রভাষক মো. রেজাউল করিম।

এতে গান পরিবেশন করে লিডিং ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী তুষার, তন্নী ভট্টাচার্য, মনন দেবনাথ এবং কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী দিগন্ত তালুকদার।

সংবাদটি শেয়ার করুন