মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন

রাত পোহালে সিলেটের ১৬টিসহ ১ হাজার ইউপিতে ভোট উৎসব

সিলেটের বার্তা ডেস্ক : / ৫৫ বার পঠিত
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন

রাত পোহালে (রবিবার ২৮ নভেম্বর) তৃতীয় ধাপে সিলেট জেলার তিন উপজেলার ১৬টিসহ সারাদেশে ১ হাজার ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

৩৭টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ করা হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)।

সিলেট জেলার তিনটি উপজেলায় ১৬টি ইউনিয়ন গুলো হলো-

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার সিলাম, লালাবাজার, জালালপুর, মোগলাবাজার ও দাউদপুর ইউনিয়ন। জৈন্তাপুর উপজেলার জৈন্তাপুর, চারিকাটা, দরবস্ত, ফতেপুর ও চিকনাগুল ইউনিয়ন ও গোয়াইনঘাট উপজেলার ডুবারি, তোয়াকুল, নন্দিরগাঁও, ফতেপুর, লেংগুড়া ও রুস্তমপুর ইউনিয়ন।

এসব ইউনিয়নে এই দিন সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোটগ্রহণ চলবে।

ইতোমধ্যে নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সিলেট জেলা আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস। নির্বাচন অফিস থেকে জানানো হয়েছে, ভোটগ্রহণের দিন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে পুলিশের, র‌্যাব, বিজিবি, আনসারের পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট মাঠে কাজ করবেন।

ভোটগ্রহণ উপলক্ষে ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। মাঠে অবস্থান নিয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে ভোটের উপকরণও।

ইসির যুগ্ম সচিব এস এম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, এক হাজার সাতটি ইউপিতে ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছিল। বিভিন্ন কারণে সাতটির ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

তৃতীয় ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ৫৬৯ জন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১০০ জন, সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১৩২ জন ও সাধারণ আসনের সদস্য পদে ৩৩৭ জন।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ব্যতীত মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ৫০ হাজার ১৪৬ জন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৪ হাজার ৪০৯ জন, সংরক্ষিত মহিল সদস্য পদে ১১ হাজার ১০৫ জন ও সাধারণ সদস্য পদে রয়েছেন ৩৪ হাজার ৬৩২ জন।

নির্বাচনে মোট ২ কোটি ১ লাখ ৪৯ হাজার ২৭ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন। ভোটগ্রহণ হবে ১০ হাজার ১৫৯টি ভোটকেন্দ্রের ৬১ হাজার ৮৩০টি ভোটকক্ষে।

শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে ভোটকেন্দ্রে নিয়োজিত করা হয়েছে পুলিশ ও আনসারের ২২ জনের ফোর্স। এছাড়া ভোটের এলাকা নিয়ন্ত্রণে রাখতে মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ, আনসার, বিজিবি, কোস্টগার্ড, র‌্যাব এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসারের মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স।

এছাড়া মাঠে রয়েছে পাঁচ শতাধিক বিচারিক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। তারা ভোটের দুদিন পরেও নির্বাচনী এলাকায় দায়িত্ব পালন করবেন।

ইতোমধ্যে দুই ধাপের ভোট সম্পন্ন করেছে ইসি। চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপিতে ২৬ ডিসেম্বর ও পঞ্চম ধাপে ৭০৭ ইউপিতে ভোটগ্রহণ হবে ৫ জানুয়ারি।

 


এই ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর