সিলেট ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জে বজ্রাঘাতে ৩ জনের প্রাণহানী

সিলেটের বার্তা ডেস্ক
প্রকাশিত মে ৪, ২০২১, ১০:৫৭ অপরাহ্ণ
হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জে বজ্রাঘাতে ৩ জনের প্রাণহানী
অন্যজনকে শেয়ার করুন⤵️Share with others

হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে দুই নারী ও সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে এক বৃদ্ধসহ বজ্রাঘাতে মোট ৩ জনের প্রাণহানীর খবর পাওয়া গেছে।

আজ মঙ্গলবার (০৪ মে) বেলা ১২টা এবং বিকেল সাড়ে ৪টায় পৃথক পৃথক ঘটনায় তারা নিহত হন।

দোয়ারাবাজারে বজ্রপাতে নিহত আব্দুল বারী (৫৪) উপজেলার পান্ডারগাও ইউনিয়নের নতুন নগর গ্রামের মৃত মফিজ আলীর ছেলে।

মঙ্গলবার (০৪ মে) বেলা ১২ টায় আকাশে কালো মেঘ ও প্রচন্ড বজ্রপাত হয় সে সময় তিনি বাড়ির পাশে ডেকার হাওরে গরু চড়াতে যায়। সেখানে গরু চড়াতে গিয়ে বজ্রপাতের কবলে পরে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যায়। তার ২ ছেলে ও ৩ মেয়ে সন্তান রয়েছে।
বজ্রপাতে মৃত আব্দুল বারীর বাতিজা লায়েক মিয়া জানান, আমার চাচা বজ্রপাতে মৃত্যু হয়েছে। আজ বিকালে লাশের দাফন করা হবে।
পান্ডারগাও ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ বলেন, আজ বেলা ১২ টায় নতুন নগর গ্রামে বজ্রপাতে আব্দুল বারী নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে।
এব্যাপারে দোয়ারাবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নাজির আলম জানান, নতুন নগর গ্রামে গরু চড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। খবর পাওয়ার পর আমার থানার এসআই সাইদুর হাওলাদারকে সেখানে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে বিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (৪ মে) দুপুর আড়াইটা ও বিকাল সাড়ে চারটায় পৃথক দু’টি স্থানে বজ্রপাতে এই দুইজনের মৃত্যু হয়। মৃতরা হলেন- করমতি রবি দাস (১৬) ও লক্ষী রানী দাশ (৫৫)।

এলাকাবাসী ও উপজেলা প্রকল্প অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১০ নম্বর সুবিদপুর ইউনিয়নের বলাকীপুর গ্রামের অর্জুন রবি দাসের কিশোরী কন্যা করমতি রবি দাস দুপুর আড়াইটায় বাড়ির পাশে কাজ করা অবস্থায় বজ্রাঘাতের শিকার হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়।

অপরদিকে উপজেলার ১ নম্বর ইউনিয়নের দত্তপাড়া গ্রামের মৃত রতিশ সরকারের স্ত্রী লক্ষী রানী (৫৫) হাওরে ধান কুড়িয়ে আনতে গিয়ে বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মলয় কুমার দাশ জানান, বজ্রপাতে নিহতদের পরিবারকে সরকারিভাবে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে।

বিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (৪ মে) দুপুর আড়াইটা ও বিকাল সাড়ে চারটায় পৃথক দু’টি স্থানে বজ্রপাতে এই দুইজনের মৃত্যু হয়। মৃতরা হলেন- করমতি রবি দাস (১৬) ও লক্ষী রানী দাশ (৫৫)।

এলাকাবাসী ও উপজেলা প্রকল্প অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১০ নম্বর সুবিদপুর ইউনিয়নের বলাকীপুর গ্রামের অর্জুন রবি দাসের কিশোরী কন্যা করমতি রবি দাস দুপুর আড়াইটায় বাড়ির পাশে কাজ করা অবস্থায় বজ্রাঘাতের শিকার হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়।

অপরদিকে উপজেলার ১ নম্বর ইউনিয়নের দত্তপাড়া গ্রামের মৃত রতিশ সরকারের স্ত্রী লক্ষী রানী (৫৫) হাওরে ধান কুড়িয়ে আনতে গিয়ে বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মলয় কুমার দাশ জানান, বজ্রপাতে নিহতদের পরিবারকে সরকারিভাবে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১