আজ শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

অবশেষে তোপের মুখে নোটিশ সরালো ইবনে সিনা

সিলেটের বার্তা ডেস্ক
প্রকাশিত মার্চ ২৯, ২০২০, ০৭:২২ অপরাহ্ণ
অবশেষে তোপের মুখে নোটিশ সরালো ইবনে সিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক:: অবশেষে তোপ আর সমালোচনার মুখে নোটিশ সরিয়ে নিয়েছে সিলেট ইবনে সিনা।

নগরীর সোবহানীঘাট পয়েন্টে ইবনে সিনার প্রবেশ মুখে লিখে রাখেন, ‘বিদেশ ফেরত কোন রোগী/দর্শনার্থী দয়া করে এই হাসপাতালে আসবেন না। আপনার/কারো করোনা ভাইরাসে কোন উপসর্গ দেখা দিলে শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে যোগাযোগ করুন’।’

এমন নিষেধ জারি করার পরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।

ফেইসবুকে অনেকে বলছেন, বিদেশ ফেরত মানেই করোনা ভাইরাসের রোগী এটা ঠিক নয়, সবাই সাধারণ চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার রাখে, ঐটা অমানবিক, এটা বিশৃঙ্খলা, ইবনে সিনার উচিত ছিল বলা ।
সদ্য বিলেত ফেরত রোগীসহ সকল রোগী পর্যাপ্ত প্রটেকশন ব্যবহার করে চিকিৎসা নিতে আসবেন, আর আপনি যদি মনে করেন করোনা ভাইরাসের কোন উপসর্গ আপনার মাঝে বিদ্যমান, তাহলে শহীদ শামছুদ্দীন হাসপাতালে সরাসরি যোগাযোগ করুন। ‘এটা কি ধরনের কথা বল্লো ইবনেসিনা? ’ স্ট্রোক এ-র রোগী লইয়া গেলে ও কয় শামসুউদ্দিনো জাওয়ার লাগি। ডাক্তার হকলতে কি যে শুরু করছে।

আরেকজন লিখছেন- আমাদের রেমিটেন্স যোদ্ধাদের এইভাবে ছোট করা ঠিক না, এই হাসপাতাল কে আমি বর্জন করেছে, আপনি করুন।‘তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি’ হাসপাতাল নাম দিছে কেনো? ‘আমি প্রথম থেকে এই হাসপাতালের অবস্থানের বিরুদ্ধে কারন রাস্তার মধ্যখানে হাসপাতালের অনুমোদন দেয়া টিক হয়ন’। সিলেট বিভাগের সকল জেলা উপজেলায় প্রবাসীদের পরিবারের কাছে এই মুহূর্তে বিষয়টি অবগত করুন।

অনেকে লিখছেন- ‘বিদেশী লোকের প্রবেশ নিষেধ’ না লিখে লিখা প্রয়োজন ছিল- প্রবাসীদের ১৪ হোম কোয়ারাইন্টাইনে থাকার পর ঢুকতে পারবেন। নতুবা পারবেন না।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন প্রতিক্রিয়া দেখে মুহুর্তের মধ্যে সাইন বোর্ড খুলে ফেলেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়- করোনা সচেতনতায় এমন সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছিল।পরে আমাদের ভুল বুঝতে পেরে তা খুলে রেখেছি। ইবনে সিনা হাসপাতাল সকলের জন্য উন্মুক্ত।

আরও পড়ুন-এবার ইবনে সিনায় ‘নিষিদ্ধ’ বিদেশিরা

সিলেটের বার্তা ডেস্ক


শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯